খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় আন্তঃডিসিপ্লিন টি-২০ ক্রিকেটে ইসিই ডিসিপ্লিন চ্যাম্পিয়ন

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় আন্তঃডিসিপ্লিন টি-২০ ক্রিকেট প্রতিযোগিতা-২০১৯ এর ফাইনাল খেলায় ইলেক্ট্রনিক্স এন্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ইসিই) ডিসিপ্লিন চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। আজ ৩০ মার্চ শনিবার বিশ্ববিদ্যালয় খেলার মাঠে অনুষ্ঠিত ফাইনাল খেলায় পরিসংখ্যান ডিসিপ্লিনকে ৫ রানে হারিয়ে ইসিই ডিসিপ্লিন চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে।

খেলা শেষে প্রধান অতিথি হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ চ্যাম্পিয়ন ও রানার আপ দলের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। তিনি এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন অত্যন্ত সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে এবং একইসাথে উত্তেজনাপূর্ণ এই ফাইনাল খেলা ছিলো উপভোগ্য। খেলোয়াড়রা নৈপুণ্য প্রদর্শন করায় তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন আসলে প্রতিদ্বন্ধীতাপূর্ণ খেলার মাধ্যমে প্রকৃতভাবে শেষ পর্যন্ত খেলাই জয়ী হয়েছে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ছাত্র বিষয়ক পরিচালক প্রফেসর মোঃ শরীফ হাসান লিমন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এবং স্বাগত বক্তব্য রাখেন শারীরিক শিক্ষা চর্চা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মোল্লা মোহাম্মদ শফিকুর রহমান। এ সময় বিজ্ঞান প্রকৌশল ও প্রযুক্তিবিদ্যা স্কুলের ডিন ও পরিসংখ্যান ডিসিপ্লিন প্রধান প্রফেসর ড. উত্তম কুমার মজুমদার এবং ইসিই ডিসিপ্লিন প্রধান প্রফেসর ড. মোঃ সোহেল মাহমুদ শেরসহ বিভিন্ন ডিসিপ্লিনের শিক্ষক, কর্মকর্তা, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সামগ্রিক অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন শারীরিক শিক্ষা চর্চা বিভাগের উপ-পরিচালক এস এম জাকির হোসেন। খেলায় সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী গণিত ডিসিপ্লিনের মোঃ তারিকুর রহমান রাফি, সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রহকারী বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ডিসিপ্লিনের শীষ আল আবরার, ম্যান অব দ্যা ফাইনাল হওয়ার গৌরব অর্জন করে ইসিই ডিসিপ্লিনের রামাদুজ্জামান রাতিন এবং ম্যান অব দ্যা টুর্ণামেন্ট ইসিই ডিসিপ্লিনের কাজী ফারহান সাদিক।

টসে জিতে ইলেক্ট্রনিক্স এন্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ইসিই) ডিসিপ্লিন ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪৫ রান সংগ্রহ করে। জবাবে পরিসংখ্যান ডিসিপ্লিন নির্ধারিত ২০ ওভার ১০ উইকেট হারিয়ে ১৪০ রান সংগ্রহ করে।

৪০ তম বিসিএস প্রিলি ঃ- ৩রা মে

৪০ তম বিসিএস আগামি মে মাসের ৩ তারিখ

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসকে মাদকমুক্ত রাখতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে: উপাচার্য

আজ ২৭ মার্চ ২০১৯ খ্রি. তারিখ সকাল ১০ টায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বিষয়ক পরিচালক ও স্বেচ্ছায় রক্তদানে ছাত্রদের সংগঠন বাঁধন এর যৌথ উদ্যোগে ক্যাম্পাসে এক বিশাল মাদকবিরোধী শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। ‘মাদককে না বলুন, জীবনকে হ্যাঁ বলুন’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে শোভাযাত্রাটি উপাচার্যের নেতৃত্বে হাদী চত্ত্বর থেকে শুরু করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ প্রশাসন ভবনের সামনে দিয়ে কটকা স্মৃতিস্তম্ভ হয়ে পুনরায় হাদী চত্ত্বরে এসে শেষ হয়।

এখানে এক সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান বলেন, শিক্ষার্থীদের পিতা-মাতা তাদেরকে বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠান লেখাপড়া শিখে মানুষ হয়ে পরিবারের হাল ধরার জন্য, দেশ ও সমাজের জন্য অবদান রাখার উদ্দেশ্যে। কিন্তু আমাদের তরুণ সমাজের অনেকেই নানাভাবে মাদক সেবনসহ বিপথে জড়িয়ে নিজে জীবন ধ্বংসের সাথে সাথে তার পরিবার ও দেশের স্বপ্ন বিনষ্ট করছে। মাদকের থাবায় অনেক তরুণের জীবন আজ বিপন্ন।

এ অবস্থা থেকে বের হয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসকে মাদকমুক্ত রাখতে আমরা সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। ছাত্রদের সংগঠন বাঁধন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে শোভাযাত্রার যে আয়োজন করেছে তাঁর জন্য তিনি তাদেরকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। একই সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল সাংস্কৃতিক ও অন্যান্য সংগঠনগুলোকেও এ কর্মসূচির সাথে যোগ দিয়ে ক্যাম্পাসকে মাদকমুক্ত রাখতে আহবান জানান।

তিনি বলেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে সহায়তা অব্যাহত রাখবে। এ সময় সংক্ষিপ্তভাবে আরও বক্তব্য রাখেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মোঃ সারওয়ার জাহান, ছাত্র বিষয়ক পরিচালক প্রফেসর মোঃ শরীফ হাসান লিমন এবং বাঁধনের সভাপতি ইয়াসীন আহমেদ জীবু। শোভাযাত্রায় বিভিন্ন স্কুলের ডিন, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত), ডিসিপ্লিন প্রধান, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারি ও বিশ্ববিদ্যালয় স্কুলের শিক্ষক, শিক্ষার্থীবৃন্দ অংশ নেন।

Kamalapur Railway Station, Bangladesh Biggest Railway Station কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন বাংলাদেশ

কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় রেলষ্টেশন। এটি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় রেলষ্টেশন। কমলাপুর ষ্টেশন ঢাকার মতিঝিলে অবস্থিত। এটি ঢাকার সাথে বাংলাদেশের অন্য জায়গার মধ্যে যোগাযোগের জন্য খুব গুরুত্বপুর্ন টার্মিনাল। এছাড়া এটি অত্যাধুনিক ভবন যার নকশা করেছেন মার্কিন স্থপতি রবার্ট বাউগি। রেলওয়ে স্টেশনটি মতিঝিলের উত্তর–পূর্ব দিকে অবস্থিত। এটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ১৯৬০ সালে এবং চালু হয় ১৯৬৯ সালে।

ভারত ভাগের পূর্বে ফুলবাড়ীয়ায় একটি মাত্র রেলওয়ে স্টেশন ছিল। বাংলা বিভক্তীকরণের পর ঢাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ শহরে রূপান্তরিত হয়। তাই ১৯৬০ এর দশকে ফুলবাড়িয়া, ঢাকার একমাত্র রেলষ্টেশনের সম্প্রসারনের উদ্দেশ্যে কমলাপুর রেলস্টেশন স্থাপনা গড়ে তোলে । সদ্যপ্রতিষ্ঠিত বুয়েটের আমেরিকান শিক্ষকদের তত্ত্বাবধানে এই সম্প্রসারন সাধিত হয়।

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনটি মতিঝিলের কাছে দক্ষিণ কমলাপুরে অবস্থিত। কমলাপুর স্টেশন একটি বিশাল অঞ্চল নিয়ে অবস্থিত। কমলাপুর তিন রাস্তার মাথার দক্ষিণ দিকে হাতের বাম পাশে অবস্থিত।

কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে দৈনিক ৫০টি ট্রেন বাংলাদেশের বিভিন্ন গন্তব্যে ছেড়ে যায়। দিন রাত সব সবসময় এখানে মানুষের যাতায়াত থাকে। যাত্রীদের সেবাদানের জন্য কমলাপুর স্টেশনে শতাধিক এবং বিভিন্ন বিভাগে বহুসংখ্যক কর্মচারি কর্মরত। এরপরও নানা সমস্যায় জর্জরিত কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন। যাত্রী বেড়েছে বহুগুণ। কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন এর বর্তমান জায়গাটি ছিল বিস্তীর্ণ ধানক্ষেত। লোকজনের বসবাস ছিল না। নিচু জমি ভরাট করে মানুষ গড়ে তুলতে থাকে বসতি।

পূর্ব দিকের মানুষ মতিঝিল আসা-যাওয়া করে এ রেল লাইনের ওপর দিয়ে। রেল রাস্তা পারাপারের দুর্ঘটনা এড়ানোর জন্য রেল লাইনের ওপর গড়ে তোলা হয় ওভারব্রিজ। বাংলাদেশের এটাই সর্ববৃহৎ রেল ওভারব্রিজ। তবে সেই ওভারব্রিজের সৌন্দর্য আর নেই। বর্তমানে বর্ধিত আকারে রিমডেলিংয়ের কাজ চলছে। বর্তমানে রেলওয়ে স্টেশনের সংস্কার কাজ চলছে।

বিসিএস প্রিলি প্রস্তুতি – আপডেট তথ্য জেনে নিন

“তালপাতা” দেশের তৈরি নতুন ল্যাপটপ।(শীঘ্রই আসছে বাজারে)
২৷ আপডেট তথ্য
কাজাখস্তানের নতুন রাজধানী এখন “নুরসুলতান”।
পূর্ব নাম ছিল “আস্তানা”।
৩৷ আপডেট তথ্য
২০১৯ সালে নারীদের মধ্যে শীর্ষ ধনীর স্বীকৃতি পেয়েছেন ফরাসি প্রসাধনী
সামগ্রী লরিয়েলের কর্ণধার
“ফ্রাঁসোয়া বেটেনকোর্ট মেয়ার্স”
৪৷ আপডেট তথ্য
2020- 2021 সাল মুজিব বর্ষ হিসেবে উদযাপন করা হবে – প্রধানমন্ত্রী “শেখ
হাসিনা”।
৫৷ আপডেট তথ্য
জাপানের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা ‘অর্ডার অব দ্য রাইজিং সান, গোল্ড
রেইস উইথ নেক রিবন’ পেলেন বাংলাদেশের জাতীয় অধ্যাপক ড. জামিলুর
রেজা চৌধুরী।
৬৷ আপডেট তথ্য
বাংলাদেশে বর্তমানে বিনিয়োগকারী শীর্ষে দেশ- যুক্তরাষ্ট্র—(বাংলা
দেশ ব্যাংক)।
৭৷ আপডেট তথ্য
“বাংলাদেশি ইমিগ্র্যান্ট ডে”
জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বাংলায় ভাষণ দেওয়ার দিনটিকে
নিউ ইয়র্ক স্টেট কর্তৃপক্ষ ‘বাংলাদেশি ইমিগ্র্যান্ট ডে’ ঘোষণা করেছে।
৮৷ আপডেট তথ্য
প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়ার পার্লামেন্টে এমপি হচ্ছেন বাংলাদেশি
বংশোদ্ভূত সাবরিনা ফারুকি।
দেশটিতে আগামী ২৩ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া নির্বাচনে তিনি
অস্ট্রেলিয়ান লেবার পার্টির (এএলপি) প্রার্থী হিসেবে লড়বেন।
৯৷ আপডেট তথ্য
বর্তমান বিশ্বে স্কুল ছাত্র- ছাত্রীদের পরিবেশবাদী নতুন এক আন্দোলন
“ফ্রাইডে’স ফর ফিউচার” (Friday’s for future)
পরিবেশদূষণের বিরুদ্ধে আন্দোলন।
১০৷ পদ্মাসেতু আপডেট
আগামী কাল দৃশ্যমান হতে যাচ্ছে পদ্মা সেতুর ১৩৫০ মিটার।
৩৫ ও ৩৬ নম্বর পিলারে বসানো হবে সেতুর নবম(৯ম) স্প্যানটি।
১১৷ আপডেট তথ্য
প্রবাসী বাংলাদেশিরা চলতি অর্থবছরের (২০১৮-১৯) প্রথম ৮ মাসে ১০,৪১০
দশমিক ২৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন।
এটি বিগত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৯৪৯ দশমিক শূন্য ৬ মার্কিন ডলার
বেশি।
অর্থাৎ এ সময়ে রেমিট্যান্স ১০ দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।
বাংলাদেশ ব্যাংকের এক উপাত্তে এসব তথ্য দেওয়া হয়েছে।
১২৷ আপডেট তথ্য
কক্সবাজারের কুতুপালং শরণার্থী শিবির এখন বিশ্বের সবচেয়ে বড় শরণার্থী
শিবির।
এর আগে ১ নম্বর অবস্থানে ছিল কেনিয়ার দাবাব শরণার্থী শিবির।
যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা রেপটিম’র এক
র্যাংকিংয়ে এ কথা বলা হয়েছে।
—ইত্তেফাক।
১৩৷ আপডেট তথ্য
বিশ্বরেকর্ড গড়তে যাচ্ছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
“সাস্ট সায়েন্স এরোনা” নামক বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সংগঠনটি
পাই (π) নিয়ে বিশ্বে দীর্ঘতম ৩.১৪১ কি.মি রোড় painting একে তারা এই
কীর্তি গড়তে যাচ্ছে।
১৪৷ আপডেট তথ্য
পৃথিবীর প্রথম “বাগ বাউন্টি মিলিয়নিয়ার হোয়াইট হ্যাট হ্যাকার”
আর্জেনটিনার ১৯ বছর বয়সী তরুণ “সান্তিয়াগো লোপেজ”।
১৫৷ আপডেট তথ্য
সুখী দেশের তালিকায় বাংলাদেশ অবস্থান ১২৫ তম।
তালিকায় শীর্ষে আছে টানা ২য় বারের মত “ফিনল্যান্ড”
এবং তলানিতে আছে “দক্ষিণ সুদান”।
১৬৷ আপডেট তথ্য
ফেনীর সোনাগাজী হতে যাচ্ছে ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন দুটি সৌরবিদ্যুৎ
কেন্দ্র , বিনিয়োগ করবে সৌদির বিখ্যাত “আল ফানার কোম্পানি”।
বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমার ও সরঞ্জামাদি উৎপাদনে চট্টগ্রামের জেমকর
কারখানায় বিনিয়োগ করবে সৌদির প্রতিষ্ঠান “ইন্জিনিয়া

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন

যথাযোগ্য মর্যাদা ও বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে আজ ২৬ মার্চ খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০১৯ উদযাপিত হয়। এ উপলক্ষে সকাল ৬ টায় শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ প্রশাসন ভবনের সামনে উপাচার্য কর্র্তৃক জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। সকাল ৬-৩০ মিনিটে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্য অদম্য বাংলায় উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে প্রথম শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন।

খুবিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান
স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন

শুদ্ধ সুরে একযোগে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন

এরপরই খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল, বিভিন্ন ডিসিপ্লিন, বিভিন্ন আবাসিক হল, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, খুবি অফিসার্স কল্যাণ পরিষদ, ছাত্রদের বিভিন্ন সংগঠন এবং কর্মচারিবৃন্দের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করা হয়। এর পর সকাল ৮টা ১মিনিটে শুদ্ধ সুরে একযোগে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন পরিচালনা করে।

এ সময় ট্রেজারার, বিভিন্ন স্কুলের ডিন, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত), ডিসিপ্লিন প্রধান, ছাত্রবিষয়ক পরিচালক, প্রভোস্ট, বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারি ও বিপুল সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির আয়োজনে সকাল ১০টায় প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ ও ভলিবল ম্যাচ এবং সকাল ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়।

এছাড়া অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে বিকেল ৪ টায় মুক্তমঞ্চে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

Xiaomi Pocophone F1 6 18 inch 4G Phablet Global Version | Gearbest FLASH SALE

Xiaomi Pocophone F1 6.18 inch 4G Phablet Global Version – Graphite Black 6+128GB 6GB RAM 128GB ROM 20.0MP Front Camera Fingerprint Sensor

Order LINK: https://bit.ly/2UT83zP

Xiaomi Mi 8 Lite 4G Phablet https://bit.ly/2HFWdGC

Xiaomi Mi Mix 3 4G Phablet https://bit.ly/2HNAnA9

Xiaomi Mi 8 4G Phablet https://bit.ly/2CBPYzp

Xiaomi Mi 8 Pro 4G Phablet https://bit.ly/2TCaMfS

xiaomi pocophone f1 review

Description: Xiaomi Pocophone F1 as a phablet features 6.18 inch display afford you a vivid and different visual experience. Triple cameras, 12.0MP + 5.0MP back camera and 20.0MP front camera, you can enjoy images with 2246 x 1080 high resolution. It comes with most of the features we’ve come to expect from a phablet, including 6GB RAM and 128GB ROM storage equipped with Android 8.1 OS and 4000mAh big capacity battery that you can play games faster.

Main Features:

Xiaomi Pocophone F1 4G Phablet 6.18 inch Android 8.1 Qualcomm Snapdragon 845 Octa Core 2.8GHz 6GB RAM 128GB ROM 20.0MP Front Camera Fingerprint Sensor 4000mAh Built-in ●Display: 6.18 inch, 2246 x 1080 Pixel Screen  ●CPU: Qualcomm Snapdragon 845 2.8GHz  ●System: Android 8.1 ●RAM + ROM: 6GB RAM + 128GB ROM ●Camera: 12.0MP + 5.0MP rear camera + 20.0MP front camera ●Sensor: Proximity Sensor, Accelerometer, E-compass, Fingerprint Sensor, Ambient Light Sensor, Gravity Sensor, Hall Sensor ●SIM Card: Nano SIM card + Nano SIM card / micro SD card ●Feature: GPS, A-GPS, Glonass, Beidou ●Bluetooth:5.0

Networks: ● GSM: B2 / B3 / B5 / B8 ● WCDMA: B1 / 2 / 5 / 8 ● FDD-LTE: B1 / 3 / 5 / 7 / 8 / 20, TDD-LTE: B38 / 40 / 41

Note: Face ID function of this phone is only available for these countries – Hong Kong ( China ), Taiwan ( China ), Singapore, Malaysia, Indonesia, Thailand, Vietnam, France, Italy, Poland, Spain, Belgium, Hindi, Nepal, Sri Lanka, Bangladesh

xiaomi pocophone f1 price pocophone f1 gsmarena xiaomi pocophone f1 price in bd pocophone f1 specs pocophone f1 buy xiaomi pocophone f1 price in bangladesh pocophone f1 price in india

গুম-খুনের সঙ্গে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের লোকজনও জড়িত — রুহুল কবির রিজভী

গুম-খুনের সঙ্গে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের লোকজনও জড়িত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। আজ নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রয়ী কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, বর্তমান অবৈধ সরকার গত এক দশকের বেশী সময় ধরে জোর করে ক্ষমতা দখল করে আছে। শেখ হাসিনার চোখে চিরকালীন প্রধানমন্ত্রী থাকার স্বপ্ন। ক্ষমতার পৌষ মাস যাতে কোনদিনই শেষ না হয়, সেই নীতি অবলম্বন করেই দেশ চালাচ্ছেন তিনি। আর সেজন্য নিজেদের ক্ষমতাকে টিকিয়ে রাখার জন্য বিরোধীদল ও মতকে দমন করতে এমন কোন বর্বর ও নির্দয় পন্থা নেই, যা করছেন না। আইনশঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কোন সংগঠন প্রকাশ্যে কিংবা তাদের গোপন সংস্থাগুলোর মাধ্যমে এই গুম-খুন করা হচ্ছে। এই গুম-খুনের সঙ্গে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের লোকজনও জড়িত বলে তথ্য-প্রমাণসহ বিদেশী সংবাদ মাধ্যমে ফলাও করে প্রচার করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, নিজেদের ব্যবসায়িক কারণেও গুম করা হচ্ছে মানুষকে। কোন মানুষেরই জীবনের নিরাপত্তা নেই। ঘর থেকে বেরুলে তিনি আবার ঘরে ফিরতে পারবেন কি না তার কোন গ্যারান্টি নেই। কারন সরকারের গোপন সংস্থার লোকজন ওৎ পেতে আছে। খবরের কাগজ খুললেই গুম অত:পর ক্রসফায়ার বা বেওয়ারিশ লাশের খবর। সেন্সরশীপের পরেও প্রায় প্রতিদিনই গণমাধ্যমে আসছে। আর এসব খবরে সারাজাতি আতঙ্কিত ও স্তম্ভিত।

রিজভী বলেন, বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী সংবাদ মাধ্যম আল জাজিরার ইনভেষ্টিগেটিভ ইউনিট এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিরাপত্তা উপদেষ্টার বিরুদ্ধে তিনজনকে গুম করার অভিযোগ উঠেছে। প্রচ্ছায়া লিমিটেডের ৩ কর্মচারীকে আইনের অপব্যবহার করে তুলে নিয়ে গুম করা হয়েছে। সম্প্রতি এই প্রতিবেদন প্রকাশের পর বাংলাদেশে আলজাজিরা ব্লক করে দিয়েছে সরকার। বাংলাদেশ থেকে এখন আর তাদের ওয়েব সাইটটিতে প্রবেশ করা যাচ্ছে না। এর মাধ্যমে সরকার আবারও প্রামণ করলো সত্যকে গলা টিপে রাখতে চায় তারা। বাকশাল পুণ:প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে গণমাধ্যমকে হত্যা করছে তারা। শুধুমাত্র সত্য প্রকাশের কারণে চ্যানেল ওয়ান, দিগন্ত টিভি, ইসলামী টিভি, পিস টিভি বন্ধ করে দিয়েছে। ‘আমার দেশ’সহ বহু প্রিন্ট মিডিয়া বন্ধ করা হয়েছে। স্বৈরাচার দীর্ঘায়িত হলে নাৎসীবাদের উত্তরণ ঘটে। এ সরকারও নাৎসীবাদের উপাসক। ক্ষমতাসীনরাই যদি নিজেদের স্বার্থের কারণে মানুষকে অদৃশ্য করে তাহলে মনুষ্যত্বহীনতার এই ভয়ঙ্কর মূর্তি দেখে সাধারণ মানুষ কি বেঁচে থাকার কোন রাস্তা খুঁজে পাবে ? ক্ষমতাশালী ব্যক্তিরাই যদি সহজাত বিচার-বুদ্ধি হারিয়ে গুম-খুনের সওদাগরীতে মেতে থাকে তাহলে মানবাধিকারের আর্তনাদ ছাড়া আর কিছুই শোনা যাবে না-যা সভ্য সমাজে অনভিপ্রেত।

বিএনপির এই নেতা বলেন, বিরোধী দলবিহীন একতরফা নির্বাচন, মিডনাইট নির্বাচন ইত্যাদির সাফল্যে আত্মহারা হওয়ার জন্যই শেখ হাসিনার নিরাপত্তা উপদেষ্টার মতোই ক্ষমতাশালী ব্যক্তিদের মাথায় আঁধার নেমেছে। আর এজন্যই তারা গুম-খুনের খেলায় বেপরোয়া ভাব দেখাচ্ছে। অবৈধ ক্ষমতার অহঙ্কার মানুষকে বিবেকশুন্য করে তোলে।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, নজমুল হক নান্নু, প্রশিক্ষণ সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, সহ দপ্তর সম্পাদক মুনির হোসেন প্রমুখ।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশ্ব পানি দিবসের কর্মসূচি পালনে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও আলোচনা

আজ ২৪ মার্চ ২০১৯ খ্রি. তারিখ সকাল সাড়ে ৯ টায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সয়েল,ওয়াটার এন্ড এনভায়রনমেন্ট ডিসিপ্লিনের উদ্যোগে বিশ্ব পানি দিবসের কর্মসূচি পালনে ক্যাম্পাসে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। র‌্যালিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামানের নেতৃত্বে আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সামনে থেকে শুরু করে কটকা হয়ে হাদী চত্বরে এসে শেষ হয়।

খুবিতে বিশ্ব পানি দিবসের কর্মসূচি পালনে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও আলোচনা

ক্রমবর্ধমান পানীয়জল সংকট মোকাবেলায় অপচয় রোধ
উৎস সংরক্ষণ ও রিসাইক্লিংয়ে জোর দিতে হবে: উপাচার্য

র‌্যালি শেষে উপাচার্য সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বিশ্ব পানি দিবস পালনের তাৎপর্য তুলে ধরে বলেন, বিশ্বে উদ্ভিদ ও প্রাণির বেঁচে থাকার জন্য পানির প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য। বিশুদ্ধ পানি বা পানীয়জলের ক্রমবর্ধমান সংকটের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন পূর্বাভাস রয়েছে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ বাঁধলে তা হবে পানি নিয়েই তাই পানির অপচয় রোধ, উৎস সংরক্ষণ এবং দূষণ রোধ খুবই জরুরী হয়ে পড়েছে। এ জন্য জনসচেতনতা তৈরি গুরুত্বপূর্ণ। তিনি আরও বলেন পানির পুনর্ব্যবহার (রিসাইক্লিং) বিষয়টি নিয়ে আমাদের ভাববার সময় এসেছে। কোনোভাবেই পানির অপচয় করা যাবে না।

পরে এ উপলক্ষে আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। ডিসিপ্লিন প্রধান প্রফেসর ড. শেখ মোতাসিম বিল্লাহ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস।

আরও বক্তব্য রাখেন ডিসিপ্লিনের শিক্ষক ও আয়োজক কমিটির আহবায়ক প্রফেসর মোঃ সানাউল ইসলাম, জনসংযোগ ও প্রকাশনা বিভাগের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) এস এম আতিয়ার রহমান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন এবং অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ডিসিপ্লিনের প্রভাষক মোঃ তারিক বিন সালাম।

অনুষ্ঠানে চূড়ান্ত পরীক্ষায় সর্বোচ্চ জিপিএ অর্জন করায় ১৫ ব্যাচের বাঁধন আহমেদ, আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় বেস্ট পোস্টার অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তির জন্য সুমাইয়া আক্তার, আন্তঃডিসিপ্লিন ভলিবল প্রতিযোগিতায় (ছাত্র) রানার আপ হওয়ায় সংশ্লিষ্ট টিমকে এবং সয়েল ডিকশেনারি এ্যাপস তৈরির জন্য সুদীপ্তকে পুরস্কৃত করা হয়।

এছাড়া ৩ মিনিট রিসার্চ থিসিস প্রেজেন্টেশন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এই প্রতিযোগিতায় নওমী জেসিকা হালদার প্রথম স্থান, বাঁধন আহমেদ দ্বিতীয় স্থান এবং শাইকা আরবি তৃতীয় স্থান অধিকার করে। তাদেরকেও পুরস্কৃত করা হয়। এসময় সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিনের শিক্ষক, শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় টেনিস টুর্নামেন্টে ঢাবিকে হারিয়ে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন

আজ ২২ মার্চ ২০১৯ খ্রি. তারিখ বিকেলে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের টেনিস গ্রাউন্ডে আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় টেনিস প্রতিযোগিতা ২০১৯ এর ফাইনাল খেলা খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত ফাইনাল খেলায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় দল ২-০ সেটে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দলকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। পরে প্রধান অতিথি হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান উপস্থিত থেকে পুরস্কার বিতরণ করেন।

তিনি বিজয়ী ও রানার আপ উভয় দলের খেলোয়াড়বৃন্দ এবং ম্যানেজার, কোচদের ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন শিক্ষার্থীদেরকে বেশি করে খেলাধূলা ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত করা দরকার। একই সাথে যারা খেলোয়াড় নয়, কিন্তু সমর্থক হিসেবে, দর্শক হিসেবে সাধারণ শিক্ষার্থীরা খেলার মাঠে সময় কাটালে খেলা যেমন প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে, তেমনি দর্শকরাও মানসিকভাবে প্রফুল্ল থাকে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যাতে মাদক বা অপসাংস্কৃতির কর্মকা-ের সাথে সম্পৃক্ত হতে না পারে সে জন্য তিনি সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে খেলাধূলা তথা সহশিক্ষা কার্যক্রম জোরদারের আহবান জানান।

তিনি বেশি বেশি করে খেলার আয়োজনের মাধ্যমে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়কে আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় খেলাধূলা ও সাংস্কৃতিক কার্যক্রমের ভেন্যু হিসেবে পরিণত করারও আহবান জানান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ছাত্র বিষয়ক পরিচালক প্রফেসর মোঃ শরীফ হাসান লিমন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শারীরিক শিক্ষা চর্চা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক ও টুর্ণামেন্ট কমিটির সদস্য-সচিব মোল্লা মোহাম্মদ শফিকুর রহমান।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন শারীরিক শিক্ষা চর্চা বিভাগের উপ-পরিচালক এস এম জাকির হোসেন। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় দলের খেলোয়াড়রা ছিলেন মোঃ রবিউল ইসলাম, আব্দুল্লাহ হাসান রাকিব, রিদওয়ানুল হক, আশফাক আহমেদ শাহুল। দলের ম্যানেজার ছিলেন প্রফেসর ড. মোঃ ইফতেখার শামস। কোচ ছিলেন শারীরিক শিক্ষা চর্চা বিভাগের উপ-পরিচালক এস এম জাকির হোসেন এবং সহকারী কোচ ছিলেন মোঃ আবু সাঈদ।

অপরদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দলের খেলোয়াড় ছিলেন শেখ মারুফ হাসান, এটিএম জাহিদ হাসান, মাধুর্য সরকার এবং এবিএম মাইনুল হাসান। ম্যানেজার ছিলেন শারীরিক শিক্ষা বিভাগের সহকারী পরিচালক মোঃ মোবাশ্বের সালাম।