খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে শোক দিবস – কটকা ট্রাজেডি কিভাবে

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের বিভিন্ন প্রান্তে চোখে পড়ে মুক্ত মঞ্চ, শহীদ মিনার, অদম্য বাংলা, কটকা মনুমেন্ট। বাইরে থেকে পরিচিত কেউ ক্যাম্পাসে এলে জানতে চায় এসব সম্পর্কে। সব কিছু নামে বুঝতে পারলেও কটকা মনুমেন্টের নাম শুনে জানতে চায় বিস্তারিত। মুখোমুখি হতে হয় নানা প্রশ্নের। এ সম্পর্কে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে জানতে চেষ্টা করেছিলাম ঘটনার বিস্তারিত।

১৩ মার্চ। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে শোক দিবস। ২০০৪ সালের এ দিনে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য ডিসিপ্লিনের শিক্ষার্থীরা সুন্দরবনে বেড়াতে গিয়ে কটকা সী-বিচে ঘোরাঘুরির সময় হঠাৎ জোয়ারের টানে সমুদ্রে হারিয়ে যায় অনেকেই, স্রোতের সাথে যুদ্ধ করে কেউ কেউ তীরে ফিরতে পারলে ও ফিরে আসতে পারেনি ওরা ১১ জন। সেখান থেকে প্রতিবছর এ দিনটিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে শোক দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।

২০০৪ সালের ১২ মার্চ রাত সাড়ে ৯টার দিকে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য ডিসিপ্লিনের ৭৮ জন ছাত্র-ছাত্রী এবং তাদের ২০ জন অতিথি নিয়ে খুলনা থেকে রওনা দেয় সুন্দরবনের উদ্দেশ্যে। সারারাত লঞ্চযাত্রা শেষে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তারা সুন্দরবনের কটকার নিকটবর্তী বাদামতলী এলাকায় পৌঁছে। বেলা ১টার দিকে তারা গভীর অরণ্য পেরিয়ে কটকা সী-বিচে পৌঁছায়। আধোঘুমে কেটে যাওয়া সারা রাতে ভ্রমনের ক্লান্তি যেন দূর করে দেয় অকুল সমুদ্রের ঢেউ। অনেকেই হাটাহাটি করতে শুরু করল সাগর পাড়ে, কয়েকজন দল বেধে বল খেলছে হাঁটুপানিতে, কেউবা আবার নেমে পড়ে সমুদ্রে গোসলের জন্য। আনন্দে উল্লাসে মেতে উঠে তারা।

হঠাৎ কানে এসে পৌঁছে এক আত্নচিৎকার। ৩-৪ জন শিক্ষার্থী ভাটার স্রোতের কবলে পড়ে। তাদের ‘বাঁচাও, বাঁচাও’ চিৎকারে পরিবেশ হঠাৎ করেই গম্ভীর হয়ে ওঠে। কিছুক্ষনের মধ্যে সবাই ব্যাপারটা বুঝতে পারলো। সাগরপাড়ে দাঁড়িয়ে চোখের সামনে এক অসহনীয় দৃশ্য। একটু দূরে সাগরের ঢেউয়ের উপর কালো কালো কয়েকটা মাথা দেখা যাচ্ছে আর তাদের উঁচু করা বাঁচতে চাওয়া হাতগুলো ভাটার টানে ভেসে যাচ্ছে আরো গভীরে। কিন্তু কারো যেন করার কিচ্ছু নেই।
কেউ কেউ ছুটে গেল তাদের দিকে। পাশের কাউকে একটু উপরে এনেই আবার ছুটে যায় অন্যকে উদ্ধারে। কারো চেষ্টা সফল হলেও অনেকেরই উদ্ধার সম্ভব হয়নি। যারা কোনমতে বেঁচে ফিরে এসেছে তারা বালুর উপর শুয়ে পড়ে হাপাচ্ছে আর বমি করছে। রুপা আপু আর কাউসার ভাই কে তারা উদ্ধার করে আনলেও ততক্ষনে তারা আর নেই। চোখের সামনে প্রিয় সহপাঠীদের করুণ মৃত্যুর দৃশ্য দেখে অনেকেই জ্ঞান হারিয়ে ফেলে।
সাগরে ভেসে থাক মুখগুলো আর দেখা যাচ্ছে না। গাছের ডাল আর লুঙ্গি দিয়ে স্ট্রেচার বানিয়ে কাউসার ভাই আর রূপা আপুকে নিয়ে সবাই ফিরে আসছে হল লঞ্চঘাটের দিকে। অসহ্য যন্ত্রনা, চুপচাপ ফুপিয়ে ফুপিয়ে কাদছে সবাই। তখনো কেউ জানে না কতজনকে ফেলে এসেছে তারা।

লঞ্চে এসে এক এক করে নাম ধরে ডাকা হচ্ছে সবাইকে। খুজে না পেলে ধরে নেয়া হচ্ছে তাদেরকে গ্রাস করে নিয়েছে ঐ রাক্ষুসে সাগর। শেষে দেখা যায় ৯জনকে আর খুজে পাওয়া যায়নি। সর্বনাশী সাগর গ্রাস করে নিয়েছে মোট ১১টি তরতাজা প্রান। যার মধ্য খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য ডিসিপ্লিনের নয়জন আর বাকি দুইজন বন্ধুদের সাথে ঘুরতে যাওয়া বুয়েটের যন্ত্রকৌশল বিভাগের।

লঞ্চ চলতে শুরু করল খুলনার দিকে। নীচতলায় দুটি নিথর দেহকে চাদরে ঢেকে রাখা। কেউ বসে, কেউ রেলিংয়ে হেলান দিয়ে, কেউ শুয়ে সবাই চুপচাপ। মাঝে মাঝে ডুকরে কেদে উঠছে কেউ কেউ। এমন পরিবেশ যেন স্বান্তনা দেবার কেউ নেই।

যাদের ওরা হারিয়ে এসেছেঃ
তৌহিদুল এনাম (অপু): চট্টগ্রামে জন্ম নেয়া অপু (পৈত্রিক নিবাস ফেনী) মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল, ঢাকা ও ঢাকা আইডিয়াল কলেজ শেষে ভর্তি হয় খুবির স্থাপত্য ডিসিপ্লিনে। চমৎকার আবৃতি করতেন। লেখালেখিও করতেন। খুবির প্রথম নাট্য সংগঠন নৃ-নাট্যের প্রতিষ্ঠাতাদের মধ্যে অন্যতম সদস্য।
আব্দুল্লাহ-হেল বাকী: খুলনা পাবলিক কলেজে স্কুল এবং খুলনা সুন্দরবন কলেজে শিক্ষা শেষে খুবির স্থাপত্য ডিসিপ্লিনে ভর্তি হন। ভালো ছড়া লিখতে পারতেন। বই পড়া ও বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিতে পছন্দ করতেন।
কাজী মুয়ীদ ওয়ালি (কুশল): আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ঢাকা তে স্কুল জীবন পরে কোডা কলেজ অব অল্টারনেটিভ ডেভেলপমেন্ট কলেজ শেষে খুবিতে। ভালো ছবি আকতে পারতেন, বই পড়তেন। মেডিটেশন করতেন নিয়মিত।
মোঃ মাহমুদুর রহমান (রাসেল): চট্টগ্রাম কলিজিয়েট স্কুল ও চট্টগ্রাম হাজী মোঃ মহসীন কলেজ শেষে খুবিতে। জন্মস্থান চাঁদপুর। টেবিল টেনিস খেলা পছন্দ করতেন।
মোঃ আশরাফুজ্জামান (তোহা): স্কুল-কলেজ কাটিয়েছেন হারম্যান মাইনার স্কুল অ্যান্ড কলেজ, মিরপুর, ঢাকাতে। জন্মস্থান ছিল যশোরে। ভাল গাইতেন এবং গীটার বাজাতেন।
আরনাজ রিফাত (রূপা): জন্ম ঢাকায়। স্কুল কেটেছে কাকলী বিদ্যালয় এবং কলেজ বদরুন্নেছা কলেজ, আজিমপুর ঢাকায়। ভালো রান্না পারতেন, অন্যকে রেধে খাওয়াতে পছন্দ করতেন।
মাকসুমমুল আজিজ মোস্তাজী (নিপুন): জন্ম দিনাজপুরে। স্কুল কেটেছে দিনাজপুর জিলা স্কুলে পরে রাজশাহী ক্যাডেট কলেজে। সর্বদা হাশিখুশি থাকতেন। ভালো কবিতা আবৃতি করতেন ও লিখতেন। বিতর্ক ও আড্ডায় টার জুরি ছিলনা।
মোঃ কাউসার আহমেদ খান: স্কুল বনানী বিদ্যা নিকেতনে পরে পাবনা ক্যাডেট কলেজ। জন্ম ঢাকায়। কম্পিউটারে গেমস খেলতে পছন্দ করতেন। স্বল্পভাষী ছিলেন, বই পড়তেন আর ঘুরে বেড়াতে পছন্দ করতেন।
মুনাদিল রায়হান বিন মাহবুব (শুভ): জন্মস্থান যশোরে। স্কুল-কলেজ কেটেছে দাউদ পাবলিক স্কুল ও কলেজ, যশোরে। বই পড়তেন খেলাধূলা করতেন। ঘুরে বেড়ানো ছিল তার শখ।
শামসুল আরেফিন শাকিল: বুয়েটের যন্ত্রকৌশল বিভাগে পড়াশুনা করতেন। স্কুল কেটেছে টঙ্গী পাইলট স্কুল অ্যান্ড কলেজে। পরে নটরডেম কলেজে। তিমি ছিলেন ভ্রমনপ্রিয়। দেশের প্রায় ৪০টি জেলা ভ্রমন করেছেন। অকাতরে বন্ধুদের সুখে-দুখে পাশে দাড়াতেন। কটকা সৈকতে দুর্ঘটনায় ১১জনকে উদ্দেশ্য করে টঙ্গীতে উনার বাবা একটা স্মৃতিসৌধ করেছেন।
সামিউল হাসান খান: আইডিয়াল প্রি-ক্যাডেট স্কুল কলেজ, ঢাকা ও নটরডেম কলেজ শেষে পড়াশুনা করতেন বুয়েটের যন্ত্রকৌশল বিভাগে। জন্মস্থান ঢাকায়। সাধারণ জ্ঞান ভাল পারতেন, বিভিন্ন প্রতিযোগীতায় অংশ নিতেন। কবিতা লিখতেন।

লেখা:সাজিদ রিয়াজ,ইসিই।

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি – ওয়েষ্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি
ওয়েষ্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড।
পদের নামঃ
১. সহকারী প্রকৌশলী।
২. উপ-সহকারী প্রকৌশলী।
আবেদনের শেষ তারিখঃ ৩১-০৩-২০১৯।
আবেদন ফিঃ ১,২০০ & ১,০০০ টাকা।
অনলাইনে আবেদনঃ http://jobs.wzpdcl.org.bd/Home.aspx

৪০তম বিসিএস প্রিলি প্রস্তুতি – কম্পিউটার ও তথ্য প্রযুক্তি টেস্ট

৪০তম বিসিএস প্রিলি প্রস্তুতি
কম্পিউটার ও তথ্য প্রযুক্তি টেস্ট
উত্তরসহ দেওয়া আছে।
১. আই. ও. এস মোবাইল অপারেটিং সিস্টেমটি কোন প্রতিষ্ঠান বাজারজাত করে ?
ক. অ্যাপল
খ. গুগল
গ. মাইক্রোসফট
ঘ. আইবিএম
উত্তর : ক
২। ইন্টেল ITANIUM কত বিট মাইক্রোপ্রসেসর ?
ক. ৩২
খ. ৬৪
গ. ১২৮
ঘ. ২৫৬
উত্তর : খ
৩। ব্লু টুথের স্ট্যান্ডার্ড কোনটি?
ক. ৮০২.১১
খ. ৮০২.১৬
গ. ৮০২.১৫
ঘ. ৮০৩.১৫
উত্তর : গ
৪। মাইক্রোসফট পাওয়ার পয়েন্টে এ স্লাইড শো চালু করার জন্য কী – বোর্ডে কোন বাটন চাপা হয়
ক. F2
খ. F3
গ. F4
ঘ. F5
উত্তর : ঘ
৫। প্রোগ্রাম থেকে কপি করা ডাটা কোথায় থাকে ?
ক. RAM
খ. CLIPBORD
গ. Terminal
ঘ. Hard disk
উত্তর : খ
5. Wi Max stands for ?
a. World Wide Interoperability for Microwave Access
b. World Wide Internet for Microwave Access
c. World Wide Interconnection for Microwave Access
d. none of them
ans : a
6 . Which are not a 3G Language ?
a. c
b. Java
c. FORTARN
D. Machine Language
ans : d
৭। কম্পিউটার মেমোরী থেকে সংরক্ষিত ডাটা উত্তোলনের পদ্ধতিকে কী বলে
a. Read Out
b. Read from
c. Read
d. all are correct
উত্তর : b
৮ । কমিউনিকেশন সিস্টেমে গেটওয়ে কী কাজে ব্যবহৃত হয় ?
ক. বিভিন্ন নেটওয়ার্ক ডিভাইস সংযুক্ত করার কাজে
খ. দুই বা তার অধিক ভিন্ন ধরনের নেটওয়ার্ককে সংযুক্ত করার কাজে
গ. এটি নেটওয়ার্ক হাব কিংবা সুইচের মতই কাজ করে
ঘ. কোনোটিই নয়
উত্তর : খ
৯ । খেলাধুলায় প্রথম কম্পিউটার ব্যবহার করা হয় কবে ?
ক. ১৯৬০
খ. ১৯৬৪
গ ১৯৬৫
ঘ. ১৯৭০
উত্তর : ক
১০ । কম্পিউটার সি. পি. ইউ এর কোন অংশ গাণিতিক সিন্ধান্ত গ্রহণের কাজ করে ?
ক. এ. এল . ইউ
খ. কন্ট্রোল ইউনিট
গ. রেজিস্টার
ঘ. কোনোটিই নয়
উত্তর : ক
১১। এ্যানড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের ক্ষেত্রে নিচের কোনটি সঠিক ?
ক. এটির নির্মাতা গুগল
খ. এটি লিনাক্স কার্নেল নির্ভর
গ. এটি প্রধানত টাচ স্ক্রিন মোবাইল ডিভাইসের জন্য তৈরি
ঘ. উপরের সবগুলো
উত্তর : ঘ
১২। ওয়েব কনটেন্ট প্রদর্শনের জন্য নিচের কোনটি ব্যবহৃত হয় ?
ক. সিস্টেম সফটওয়্যার
খ. অ্যান্টি ভাইরাস
গ. ওয়েব ব্রাউজার
ঘ. স্ক্যানার
উত্তর গ
১৩। যদি কোন web page এর URL এ —- থাকে তাহলে সেই page টি নিরাপদ ।
a. https
b. serial interface protocol
c. cookie
d. flat- flie
ans a
14 . MICR stands for
a. Magnetic Ink Character Reader
b. Magnetic Ink Code Reader
c. Magnetic Ink Case Reader
d. none of above these
ans ;a
15. What is called the last part of IP address ?
a. Unicast address
b. Broadcast address
c. Network address
d. none of above these
ans : b
16 . পেন ড্রাইভ কিসের পরিবর্তে ব্যবহৃত হয় ?
a. Hard disk
b. printer
c. Modem
d. Floppy Disk
উত্তর : ঘ
১৭। একটি ২ ইনপুট লজিক গেইটের আউটপুট ϴ হবে, যদি এর ইনপুটগুলো সমান হয় ; এই উক্তিটি কোন গেইটের জন্য সত্য ?
a. AND
b. NOR
c. Ex-OR
D. OR
ANS: C
18. Which is correct for Boolean Algebra?
a . A + A*=1
b. A-A=1
c. A+A= 2A
D. none of these
ans : a
19. What is the bits of IP-V6 ?
a. 128
b. 32
c. 12
d. 6
ans : a
20 . Which is not a input device of mobile Phone ?
a. Key Pad
b. Touch screen
c. camera
d. Power supply
ans : d

খুবিতে সুশাসনে তথ্য অধিকার ও গণমাধ্যমের ভূমিকা শীর্ষক #সেমিনার অনুষ্ঠিত

খুবিতে সুশাসনে তথ্য অধিকার ও গণমাধ্যমের ভূমিকা শীর্ষক #সেমিনার অনুষ্ঠিত

তথ্য প্রবাহ অবাধ হলে দুর্নীতি হ্রাসে তা কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে : উপাচার্য

আজ ১১মার্চ ২০১৯ খ্রি. তারিখ সোমবার সকাল ১০ টায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা ডিসিপ্লিনের উদ্যোগে ‘সুশাসনে তথ্য অধিকার ও গণমাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা ডিসিপ্লিন প্রধান (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. মোসাম্মাৎ হোসনে আরার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান। তিনি বলেন, তথ্য জানার অধিকার এখন বিশ্বব্যাপী বহুল প্রচলিত, চর্চিত ও গুরুত্বর্পূণ একটি বিষয় যা মানুষের মৌলিক অধিকার পর্যায়ে অন্তর্ভুক্ত, অনেক দেশেই সাংবিধানিকভাবে, এমনকি জাতিসংঘ স্বীকৃত বিষয়। তিনি বলেন, তথ্য প্রবাহ অবাধ হলে দুর্নীতি হ্রাসে তা কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে। আবার মিথ্যা তথ্য ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, দেশ ও জাতির জন্য ক্ষতিকর। এধরণের তথ্য সমাজে বিভ্রান্তির সৃষ্টি এবং উন্নয়ন বাধাগ্রস্থ করে। একইসাথে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা, সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে সুদৃঢ়করণের ক্ষেত্রেও তার ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। তিনি আরও বলেন রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তাসহ কয়েকটি ক্ষেত্রের গোপনীয়তা রক্ষা ছাড়া স্বাভাবিকভাবে অন্যান্য জনসংশ্লিষ্ট সকল সেবায় গোপনীয়তা রক্ষার চেষ্টা মানেই সেখানে দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেওয়া বা অসৎ উদ্দেশ থাকা। তিনি বলেন এখনও আমাদের দেশে বেশিরভাগ মানুষ সঠিক তথ্যের অভাবে, জবাবদিহিতার অভাবে বিভিন্ন অফিসে সেবা নিতে যেয়ে আর্থিক ক্ষতি ও হয়রানির সম্মুখীন হন। উপাচার্য আরও বলেন, আমাদের দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে যথেষ্ট স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসন রয়েছে। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে তিনি তথ্যের অধিকার নিশ্চিত করাসহ বিভিন্নভাবে বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি কোয়ালিটি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলার প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন এ বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা ডিসিপ্লিনের শিক্ষার্থীরা ভবিষ্যতে বিভিন্ন গণমাধ্যমে যুক্ত হয়ে এবং অন্যান্য ক্ষেত্রে তাদের পেশাগত জীবনে অর্জিত জ্ঞান কাজে লাগাবে। তারা তাদের লেখনীর মাধ্যমে দেশের অভীষ্ট উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে, একইসাথে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করবে।
প্রধান আলোচক সাবেক প্রধান তথ্য কমিশনার প্রফেসর ড. গোলাম রহমান বলেন, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার সাথে জনগণের চিন্তা-চেতনার বহিঃপ্রকাশের বিষয় যুক্ত রয়েছে। স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে আইনের শাসন কার্যকর হওয়াটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা না হলে সে সমাজে জনগণের মধ্যে হতাশা বেড়ে যায়। আমরা যা কিছু করতে চাই তার অভীষ্ট লক্ষ্য হওয়া উচিত জনগণের কল্যাণ। যে আইন জনকল্যাণে কাজে আসে না তাকে ভালো আইন বলা যায় না। তিনি বলেন আমাদের দেশের গণমাধ্যম এখনও পশ্চিমা ধ্যান-ধারণা থেকে বের হয়ে আমাদের মতো হয়ে ওঠেনি। আমাদের গণমাধ্যম এখন একটি পরিবর্তন উন্মুখ অবস্থার মধ্যে বিরাজ করছে, যেখানে আগামী ১০-১৫ বছরের মধ্যে একটি বড় পরিবর্তন সাধিত হতে পারে। প্রিন্ট মিডিয়া ক্রমশ টিকে থাকার চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন, ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াও সামনে এমন চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে পারে। গোটা বিশ্বে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং বিশেষ করে ইন্টারনেট মাধ্যম নতুন এক তথ্যদ্বার উন্মোচন করেছে, যেখানে তথ্য প্রবাহ একেবারে প্রান্তিক পর্যায়ের সাধারণ মানুষকে সম্পৃক্ত করছে এবং তারাও তাদের মতামত শেয়ার করছে। এটা অন্য কোনো গণমাধ্যমে সম্ভব হচ্ছে না। তবে তিনি ইলেক্ট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার বিষয়ে অবশ্যই একটি নীতিমালা বা আইন থাকা জরুরী বলে উল্লেখ করেন। তিনি পেশাজীবীত্বের মাধ্যমে গণমাধ্যমের উৎকর্ষ সাধনে এগিয়ে আসার জন্য নিয়োজিত সাংবাদিক তথা গণমাধ্যম কর্মীদের প্রতি আহবান জানান। তিনি কর্পোরেট কালচার ও গোষ্ঠী স্বার্থ নিয়ন্ত্রণ থেকে বেরিয়ে সত্যিকার অর্থে বস্তুনিষ্ঠ, বহুত্বচিন্তার প্রতিফলন, দেশ ও জাতির কাছে দায়বদ্ধ অভীষ্ট কল্যাণব্রত গণমাধ্যম কালচার প্রতিষ্ঠার প্রতিও তাগিদ দেন। সেক্ষেত্রে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতার কয়েক হাজার গ্রাজুয়েট ও শিক্ষার্থীদের ভূমিকার কথা উল্লেখ করে নিকট ভবিষ্যতে গণমাধ্যমে ইতিবাচক পরিবর্তনের আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি জোর দিয়ে বলেন প্রকৃতপক্ষে সুশাসনের জন্য তথ্য অধিকার যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি অবাধ তথ্য প্রবাহ ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা সুশাসন, জবাবদিহিতা এবং গণতন্ত্র সুপ্রতিষ্ঠার জন্যও সহায়ক। পরে এক প্রশ্নোত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সামাজিক বিজ্ঞান স্কুলের ডিন প্রফেসর মোছাঃ তাছলিমা খাতুন। সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিনের প্রভাষক মোঃ শরিফুল ইসলাম। সেমিনারে সামাজিক বিজ্ঞান স্কুলের বিভিন্ন ডিসিপ্লিন প্রধান এবং গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা, আইন এবং ডিভেলপমেন্ট স্টাডিজ ডিসিপ্লিনের প্রায় তিনশত শিক্ষক ও শিক্ষার্থী অংশ নেন।
আজ ১১মার্চ ২০১৯ খ্রি. তারিখ সোমবার সকাল ১০ টায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা ডিসিপ্লিনের উদ্যোগে ‘সুশাসনে তথ্য অধিকার ও গণমাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা ডিসিপ্লিন প্রধান (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. মোসাম্মাৎ হোসনে আরার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান। তিনি বলেন, তথ্য জানার অধিকার এখন বিশ্বব্যাপী বহুল প্রচলিত, চর্চিত ও গুরুত্বর্পূণ একটি বিষয় যা মানুষের মৌলিক অধিকার পর্যায়ে অন্তর্ভুক্ত, অনেক দেশেই সাংবিধানিকভাবে, এমনকি জাতিসংঘ স্বীকৃত বিষয়। তিনি বলেন, তথ্য প্রবাহ অবাধ হলে দুর্নীতি হ্রাসে তা কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে। একইসাথে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা, সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে সুদৃঢ়করণের ক্ষেত্রেও তার ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। তিনি আরও বলেন রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তাসহ কয়েকটি ক্ষেত্রের গোপনীয়তা রক্ষা ছাড়া স্বাভাবিকভাবে অন্যান্য জনসংশ্লিষ্ট সকল সেবায় গোপনীয়তা রক্ষার চেষ্টা মানেই সেখানে দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেওয়া বা অসৎ উদ্দেশ থাকা। তিনি বলেন এখনও আমাদের দেশে বেশিরভাগ মানুষ সঠিক তথ্যের অভাবে, জবাবদিহিতার অভাবে বিভিন্ন অফিসে সেবা নিতে যেয়ে আর্থিক ক্ষতি ও হয়রানির সম্মুখীন হন। উপাচার্য আরও বলেন, আমাদের দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে যথেষ্ট স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসন রয়েছে। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে তিনি তথ্যের অধিকার নিশ্চিত করাসহ বিভিন্নভাবে বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি কোয়ালিটি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলার প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন এ বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা ডিসিপ্লিনের শিক্ষার্থীরা ভবিষ্যতে বিভিন্ন গণমাধ্যমে যুক্ত হয়ে এবং অন্যান্য ক্ষেত্রে তাদের পেশাগত জীবনে অর্জিত জ্ঞান কাজে লাগাবে। তারা তাদের লেখনীর মাধ্যমে দেশের অভীষ্ট উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে, একইসাথে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করবে।
খুবিতে সুশাসনে তথ্য অধিকার ও গণমাধ্যমের ভূমিকা শীর্ষক #সেমিনার অনুষ্ঠিততথ্য প্রবাহ অবাধ হলে দুর্নীতি হ্রাসে তা কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে : উপাচার্যম রহমান বলেন, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার সাথে জনগণের চিন্তা-চেতনার বহিঃপ্রকাশের বিষয় যুক্ত রয়েছে। স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে আইনের শাসন কার্যকর হওয়াটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা না হলে সে সমাজে জনগণের মধ্যে হতাশা বেড়ে যায়। আমরা যা কিছু করতে চাই তার অভীষ্ট লক্ষ্য হওয়া উচিত জনগণের কল্যাণ। যে আইন জনকল্যাণে কাজে আসে না তাকে ভালো আইন বলা যায় না। তিনি বলেন আমাদের দেশের গণমাধ্যম এখনও পশ্চিমা ধ্যান-ধারণা থেকে বের হয়ে আমাদের মতো হয়ে ওঠেনি। আমাদের গণমাধ্যম এখন একটি পরিবর্তন উন্মুখ অবস্থার মধ্যে বিরাজ করছে, যেখানে আগামী ১০-১৫ বছরের মধ্যে একটি বড় পরিবর্তন সাধিত হতে পারে। প্রিন্ট মিডিয়া ক্রমশ টিকে থাকার চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন, ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াও সামনে এমন চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে পারে। গোটা বিশ্বে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং বিশেষ করে ইন্টারনেট মাধ্যম নতুন এক তথ্যদ্বার উন্মোচন করেছে, যেখানে তথ্য প্রবাহ একেবারে প্রান্তিক পর্যায়ের সাধারণ মানুষকে সম্পৃক্ত করছে এবং তারাও তাদের মতামত শেয়ার করছে। এটা অন্য কোনো গণমাধ্যমে সম্ভব হচ্ছে না। তবে তিনি ইলেক্ট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার বিষয়ে অবশ্যই একটি নীতিমালা বা আইন থাকা জরুরী বলে উল্লেখ করেন। তিনি পেশাজীবীত্বের মাধ্যমে গণমাধ্যমের উৎকর্ষ সাধনে এগিয়ে আসার জন্য নিয়োজিত সাংবাদিক তথা গণমাধ্যম কর্মীদের প্রতি আহবান জানান। তিনি কর্পোরেট কালচার ও গোষ্ঠী স্বার্থ নিয়ন্ত্রণ থেকে বেরিয়ে সত্যিকার অর্থে বস্তুনিষ্ঠ, বহুত্বচিন্তার প্রতিফলন, দেশ ও জাতির কাছে দায়বদ্ধ অভীষ্ট কল্যাণব্রত গণমাধ্যম কালচার প্রতিষ্ঠার প্রতিও তাগিদ দেন। সেক্ষেত্রে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতার কয়েক হাজার গ্রাজুয়েট ও শিক্ষার্থীদের ভূমিকার কথা উল্লেখ করে নিকট ভবিষ্যতে গণমাধ্যমে ইতিবাচক পরিবর্তনের আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি জোর দিয়ে বলেন প্রকৃতপক্ষে সুশাসনের জন্য তথ্য অধিকার যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি অবাধ তথ্য প্রবাহ ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা সুশাসন, জবাবদিহিতা এবং গণতন্ত্র সুপ্রতিষ্ঠার জন্যও সহায়ক। পরে এক প্রশ্নোত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সামাজিক বিজ্ঞান স্কুলের ডিন প্রফেসর মোছাঃ তাছলিমা খাতুন। সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিনের প্রভাষক মোঃ শরিফুল ইসলাম। সেমিনারে সামাজিক বিজ্ঞান স্কুলের বিভিন্ন ডিসিপ্লিন প্রধান এবং গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা, আইন এবং ডিভেলপমেন্ট স্টাডিজ ডিসিপ্লিনের প্রায় তিনশত শিক্ষক ও শিক্ষার্থী অংশ নেন।

বিসিএস প্রিলি প্রস্তুতি – গুরুত্বপূর্ণ সাম্প্রতিক তথ্য

□গুরুত্বপূর্ণ সাম্প্রতিক তথ্য :

১. একাদশ জাতীয় সংসদে নির্বাচিত নারী এম.পি—২২ জন।
২.বর্তমানে দেশে নদীবন্দর — ৩৩ টি( সর্বশেষ মেঘাই ঘাট – নাটুয়ারপাড়া নদীবন্দর)
৩.মন্ত্রিসভায় পরিকল্পনামন্ত্রী — এম এ মান্নান।
৪. D-8 ‘র বর্তমান মহাসচিব — দাতো কু জাফর কু শারি। ( মালয়েশিয়া)
৫. IMF এর প্রথম নারী প্রধান অর্থনীতিবিদ — গীতা গোপীনাথ।
৬. অান্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল এর নতুন প্রধান নির্বাহী — মানু স্বাহানি ( বর্তমান সদস্য ১০৫, সর্বশেষ যুক্তরাষ্ট্র)
৭. অাকাশ পথে সাশ্রয়ী ভ্রমণের জনক — জন সি বোগল।
৮. এপেক ২৭ তম সম্মেলন হবে — চিলি ( ১৬-১৭ নভেম্বর, ২০১৯)
৯. জি৭ এর ৪৫ তম সম্মেলন হবে— ফ্রান্সে ( ২৫-২৭ অাগস্ট, ২০১৯)
১০. বিশ্ব অর্থনীতিতে বাংলাদেশ— ৪১ তম। ( শীর্ষে যুক্তরাষ্ট্র, সর্বনিম্নে টুভ্যালু)
_________________________________

১) একাদশ জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরিন শারমিন চৌধুরী (১৪তম)।
২) একাদশ জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়া।
৩) একাদশ জাতীয় সংসদের সরকার দলীয় চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটন।
৪) বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের নতুন নামকরণ করা হয়েছে ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সার্টিফিকেশন বোর্ড’।
৫) পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের নতুন নামকরণ করা হয়েছে ‘পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়’ (Ministry of Environment, Forest and climate Change)।
৬) সংগীত পরিচালক, গীতিকার ও সুরকার আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল মারা যান ২২ জানুয়ারি ২০১৯। তিনি মাত্র সাড়ে ১৪ বছর বয়সে মুক্তিযুদ্ধ করেন (২ নম্বর সেক্টরে)।
৭) বাংলাদেশের চাঁপাইনবাবগঞ্জের ক্ষীরসাপাতি আম ৩য় ভৌগোলিক পণ্য হিসেবে WIPO’র স্বীকৃতি লাভ করে ২৭ জানুয়ারি ২০১৯।
৮) ২০১৯ সালের অর্থনৈতিক স্বাধীনতার সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ১২১তম।
৯) মাছ উৎপাদনে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান তৃতীয় (ইলিশ উৎপাদনে প্রথম)।
১০) চা উৎপাদনে বাংলাদেশ বিশ্বে ৯ম (প্রথম চীন, দ্বিতীয় ভারত); চা রপ্তানিতে বাংলাদেশ ৭৭তম; বর্তমানে বাংলাদেশে চা বাগানের সংখ্যা ১৬৬টি।
১১) গবাদিপশু উৎপাদনে বাংলাদেশ বিশ্বে ১২তম।
১২) নৌবাহিনীর প্রধান আবু মোজাফফর মহিউদ্দিন মোহাম্মদ আওরঙ্গজেব চৌধুরী।
১৩) বিশ্ব অর্থনৈতিক পরিস্থিতি ও প্রত্যাশা’ শীর্ষক জাতিসংঘের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী বিশ্বের তৃতীয় দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির দেশ হচ্ছে বাংলাদেশ।
১৪) যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী সাময়িকী ‘দ্য ফরেন পলিসি’ বিশ্বের ১০০ সেরা চিন্তাবিদদের তালিকায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবস্থান ৯ম ।
১৫) বাংলাদেশ ছাগলের দুধ উৎপাদনে বিশ্বে দ্বিতীয়। ছাগলের সংখ্যা ও মাংস উৎপাদনে বিশ্বে চতুর্থ।
১৬) কাঁঠাল উৎপাদনে বিশ্বের দ্বিতীয়, আমে সপ্তম ও পেয়ারা উৎপাদনে অষ্টম স্থানে আছে বাংলাদেশ এবং মৌসুমি ফল উৎপাদনে বাংলাদেশের অবস্থান বর্তমানে দশম।
১৭) ‘পভার্টি অ্যান্ড শেয়ার প্রসপারিটি বা দারিদ্র্য ও সমৃদ্ধির অংশীদার-২০১৮’ শীর্ষক প্রতিবেদন
অতিগরিব মানুষের সংখ্যা বেশি এমন দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান পঞ্চম (শীর্ষদেশ ভারত)।
১৮) ২০১৯ সালে বিশ্বের ৪১তম বৃহত্তম অর্থনীতির দেশে উন্নীত হয়েছে বাংলাদেশ। দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশের অবস্থান দ্বিতীয়।
১৯) ২০১৮ সালের হিসেবে বর্তমানে মোবাইল ফোনের গ্রাহক সংখ্যা ১৫.৬৯ কোটি।
২০) বৈশ্বিক পাসপোর্ট সূচক ২০১৯ অনুযায়ী বাংলাদেশ বিশ্বে ৯৭ তম।
__________________________________

1.MNP—— Mobile Number Portability.
2. MNP বাংলাদেশে চালু হয়— ১ অক্টোবর, ২০১৮ (৭২ তম দেশ)
3.দেশের ডাক বিভাগের ব্যাংকিং সেবার নাম— নগদ।
4. ইথিওপিয়ার প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট —– সাহলে – ওয়র্ক জিউদা।
5.ভুটানের নতুন প্রধানমন্ত্রী —- লোটে শেরিং।
6. ইরাকের নতুন প্রেসিডেন্ট —– বারহাম সালিহ।
7. COP24 অনুষ্ঠিত হবে— ৩-১৪ ডিসেম্বর, ( পোল্যান্ড)
8. ২০১৮ সালে বৈশ্বিক প্রতিযোগিতার সক্ষমতায় শীর্ষে অবস্থানকারী — যুক্তরাষ্ট্র।
সর্ব নিম্নে —— শাদ।
বাংলাদেশের অবস্থান —– ১০৩ তম।
9.বিশ্বব্যাংকের ২০১৮ সালের মানব সম্পদ সূচকে— বাংলাদেশ ১০৬ তম।
শীর্ষে— সিংগাপুর।
সর্বনিম্নে— শাদ।
10. No Spin অাত্মজীবনীর রচয়িতা — শেন ওয়ার্ন।
_________________________________

1.ফোর্বস মেগাজিন জরিপে ১০০ ক্ষমতাধর নারীর শীর্ষে অ্যান্জেলা মার্কেল, ২য় অবস্থানে থেরেসা মে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৬ তম অবস্থানে।
2. আন্তর্জাতিক আত্মসংযম বর্ষ ( International Year of Moderation) হিসাবে ঘোষণা করা হয়-
-২০১৯ সালকে।
3.৩১ শে ডিসেম্বর ২০১৮ কোন দুটি দেশ UNNECO’র সদস্যপদ ত্যাগ করবে?
– যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েল।
3. ১৮ তম ন্যাম (NAM) সম্মেলন অনুষ্ঠিতব্য হবে কোথায়-
– বাকু, আজারবাইজান (১৪-১৫ জুন, ২০১৯)
4.বিদ্যুৎ উৎপাদনে বাংলাদেশের অবস্থান বিশ্বে-
– ৪৩ তম
5.দেশের বৃহত্তম সৌর বিদ্যুৎ কেন্দ্র-
– টেকনাফ, কক্সবাজার।
6.’বানৌজা শেখ মুজিব’ নৌঘাঁটি অবস্থিত-
– খিলক্ষেত, ঢাকা।
7.২০১৮-২১ সালের রপ্তানি নীতিতে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার প্রাপ্ত খাত –
– ১৫ টি
8. বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে বর্তমানে ক্যাডার সংখ্যা –
– ২৬ টি।
9.বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হওয়া দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ– ‘হংস বলাকা’
10.সম্প্রতি প্রকাশিত ‘৩০৫৩ দিন’ শীর্ষক নতুন বইটি — বঙ্গবন্ধুর কারাজীবন।
_________________________________
১.CEBR এর ২০১৯ সালে বাংলাদেশ বিশের কত তম বৃহত্তম অথনীতির দেশ…৪১তম
২.গণতন্রের সুচকে বাংলাদেশ.. ৮৮তম
৩”.নারদ নদ ” কোথায়….নাটোর.
৪.প্রাচোর নিউজিল্যান্ড বলা হয়…ভুটান কে.
৫.বতমানে UNESCO এর সদস্য… ১৯৩.
৬.বাজার মুলে্ শীষ শেয়ার বাজার যে
দেশে..USA
৭.প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) প্রধান অর্থনীতিবিদ হিসেবে নিযুক্ত হয়েছেন একজন নারী। তাঁর নাম কী…ভারতের কলকাতার গীতা গোপীনাথ।
৮.বিশ্বব্যাংকের মতে, কোন অঞ্চল বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত অগ্রসরমাণ অর্থনৈতিক অঞ্চল…দক্ষিণ এশিয়া।
৯.কলকাতায় প্রথমবারের মতো নির্বাচিত মুসলিম মেয়র কে…ফিরহাদ হাকিম।
১০.বৈশ্বিক পাসপোর্ট সূচক ২০১৯-এর তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান কততম…৯৭তম (২০১৮ সালে ছিল ১০০তম) ।
_________________________________
*কাঁঠাল উৎপাদনে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান কততম?
= দ্বিতীয় ।
.
*আয়তনের দিক দিয়ে বাংলাদেশ বিশ্বে কততম?
= ৯৪তম ।
*পরিবার থেকে পালিয়ে যাওয়া সৌদি তরুণী রাহাফ মোহাম্মদ আল কুনুনকে কোন দেশ আশ্রয় দিয়েছে?
= কানাডা।
.
*জনসংখ্যার দিক দিয়ে বাংলাদেশ বিশ্বে কততম?
= অষ্টম ।
.
*বাংলাদেশের মোট কতটি পণ্য জিআই (জিওগ্রাফিক্যাল ইন্ডিকেশন) সনদ পেয়েছে?
= ২টি (প্রথমটি জামদানি, দ্বিতীয়টি ইলিশ) ।
.
*বাংলাদেশে নবনিযুক্ত ইরানের রাষ্ট্রদূতের নাম কী?
= মোহাম্মদ রেজা নাওফর।
.
*বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির বিশেষ গবেষণা জরিপ অনুযায়ী, দেশের গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর কত শতাংশ ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত?
= ১০ দশমিক ১৫ শতাংশ।
.
*২০১৮ সালের হিসাব অনুযায়ী, বাংলাদেশে মোবাইল ফোনের গ্রাহক কত?
= ১৫ দশমিক ৬৯ কোটি।
.
*চলতি অর্থবছরে এডিপির (বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি) আকার কত?
= ১ লাখ ৮০ হাজার ৮৬৯ কোটি টাকা (১ হাজার ৫০৭টি প্রকল্প) ।
.
*শরণার্থীদের নিয়ে লেখা নোবেল বিজয়ী মালালা ইউসুফজাইয়ের সম্প্রতি প্রকাশিত বইটির নাম কী?
= উই আর ডিসপ্লেসড
.
* পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দলের নাম কী?
= পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ বা পিটিআই।
.
* বর্তমান বিশ্বে বন্দরকেন্দ্রিক প্রকল্পগুলোর মধ্যে সবচেয়ে ব্যয়বহুল প্রকল্প কোনটি?
= পায়রা গভীর সমুদ্রবন্দর।
.
* সম্প্রতি ময়মনসিংহের কোথায় অর্থনৈতিক অঞ্চল তৈরির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে?
= ত্রিশালে।
.
* সম্প্রতি আইসিসির বর্ষসেরা টি-টোয়েন্টি দলে জায়গা পেয়েছেন বাংলাদেশের কোন নারী ক্রিকেটার?
= রুমানা আহমেদ।
.
* সোভিয়েত ইউনিয়ন প্রতিষ্ঠার চুক্তি হয় কবে?
= ১৯২২ সালের ৩০ ডিসেম্বর।
.
* বাংলাদেশের বর্তমান সেনাপ্রধান কে?
= লেফটেন্যান্ট জেনারেল আজিজ আহমেদ।
.
* সিরিয়ায় চলমান গৃহযুদ্ধ শুরু হয়েছিল কবে?
= ২০১১ সালে।
.
* বাংলাদেশে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন যেদিন অনুষ্ঠিত হলো (৩০ ডিসেম্বর, ২০১৮), একই দিনে বিশ্বের আর কোন দেশে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল?
= ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব কঙ্গো।
.
* সাংবাদিকদের আন্তর্জাতিক সংগঠন সিপিজের পুরো নাম কী?
= কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস।
.
* একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কয়টি আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করা হয়?
= ৬টি আসনে (৮৪৫টি কেন্দ্র)।
.
* বাংলা একাডেমি ২০১৯ সাল থেকে কোন পুরস্কার প্রদান করতে যাচ্ছে?
= কবি জসীমউদ্​দীন সাহিত্য পুরস্কার।
.
* সম্প্রতি কোন দুটি দেশ ইউনেসকো ছেড়েছে?
= যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েল।
.
* দেশের প্রথম সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে কোন প্রতিষ্ঠানটি শেয়ারবাজারে যাচ্ছে?
= ই-জেনারেশন লিমিটেড।
.
* বর্তমানে বাংলাদেশের জিডিপিতে শিল্প খাতের অবদান কত?
= ৩০ শতাংশ।
.
* জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফের নিউইয়র্ক কার্যালয়ের প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১৯ সালের ১ জানুয়ারি সারা বিশ্বে যত শিশু জন্মেছে, তাদের মধ্যে কত শতাংশের জন্ম বাংলাদেশে?
= ২ দশমিক ১৩।
.
* সম্প্রতি মৌলভীবাজারে কোন অর্থনৈতিক অঞ্চল তৈরির কাজ শুরু হয়েছে?
= শ্রীহট্ট অর্থনৈতিক অঞ্চল।
.
* ক্লাব ওয়ার্ল্ড কাপের একমাত্র হ্যাটট্রিক শিরোপাজয়ী দল কোনটি?
= স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ।
.
* সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে অবসরের পর পেনশনের পুরো টাকা যাঁরা তুলে নিয়েছেন, তাঁদের ন্যূনতম কত টাকা ভাতা দেওয়ার নিয়ম করা হয়েছে?
= ৩ হাজার টাকা।
.
* পায়রা বন্দর কোথায় অবস্থিত?
= পটুয়াখালীর কলাপাড়ায়।
.
* জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) মতে বর্তমানে কর শনাক্তকরণ নম্বরধারীর (টিআইএন) সংখ্যা কত?
= ৩৮ লাখ।
.
* উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ রাজনৈতিক আশ্রয় নেন কোথায়?
=.লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাসে, ২০১২ সালে।
.
* আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠান এআইআইবির পুরো নাম কী?
= দ্য এশিয়ান ইনফ্রাস্ট্রাকচার ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংক বা এশীয় অবকাঠামো বিনিয়োগ ব্যাংক।
.
* বাংলাদেশে সোনার দাম নির্ধারণ করে কারা?
= স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের সংগঠন—বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)।
.
* ‘আনাক ক্রাকাতোয়া’ কিসের নাম?
= ইন্দোনেশিয়ার একটি আগ্নেয়গিরির নাম।
.
* বিশ্বব্যাংকের ইজ অব ডুয়িং বিজনেস-২০১৯ প্রতিবেদন অনুযায়ী দক্ষিণ এশিয়ার ৮টি দেশের মধ্যে ব্যবসায়ের সবচেয়ে ভালো পরিবেশ কোন দেশে বিদ্যমান?
= ভারতে (সবচেয়ে খারাপ পরিবেশ বাংলাদেশে)।
.
* ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের (ডব্লিউইএফ) বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা সক্ষমতা সূচক বা গ্লোবাল কম্পিটিটিভ ইনডেক্সের (জিসিআই) প্রতিবেদন অনুযায়ী বিশ্বের ১৪০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান কত?
= ১০৩।
.
* ২০১৮ সালে প্রকাশিত জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) মানব উন্নয়ন প্রতিবেদন অনুযায়ী বিশ্বের ১৮৯টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান কত?
= ১৩৬।
.
* বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) হিসাব মতে, বিশ্বের কত শতাংশ মানুষ নির্মল বায়ু বঞ্চিত?
= ৯১ শতাংশ।
.
* আন্দামান ও নিকোবরের তিন দ্বীপের পরিবর্তিত নাম কী?
= রোজ, নেইল ও হেভলক দ্বীপের পরিবর্তিত নাম যথাক্রমে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু, স্বরাজ ও শহীদ দ্বীপ।
.
* ব্রাজিলের নতুন প্রেসিডেন্টের নাম কী?
= জইর বলসোনারো।
* আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) তথ্যমতে ২০১৯ ও ২০২০ সালে বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধি কত হবে?
= ৩ দশমিক ৫ এবং ৩ দশমিক ৬ শতাংশ
.
* এ বছর কততম বারের মতো ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা অনুষ্ঠিত হলো
= ১৯তম।
.
* সম্প্রতি কোন দেশ সরকারের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থানচেষ্টায় ব্যর্থ হয়?
= ভেনেজুয়েলা।
.
* যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ফরেন পলিসি সাময়িকীতে প্রকাশিত দশকের সেরা ১০০ চিন্তাবিদের তালিকায় বাংলাদেশের কে স্থান পেয়েছেন?
= প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ডিফেন্স অ্যান্ড সিকিউরিটি ক্যাটাগরিতে)

যমুনা ব্যাংকে চাকুরির সুযোগ আসছে। বেতন ৬২০০০ হাজার – বিস্তারিত দেখুন

Career Opportunity at “Jamuna Bank Ltd.”

Position:
1. Management Trainee
2. Probationary Officer
Salary on probation:
★MTO=50000/=
★PO =40000/=
Satisfactory completion of 1 year probation period “Management Trainee” will be absorbed as “First Executive Officer” with salary 62000/= and “Probationary Officer” will be absorbed as “Officer-General” with salary 46000/=

Educational Requirement:
4 years graduation in any discipline from any reputed University of the country or any reputed foreign university. Candidates should have minimum CGPA 3.0 out of 4.00 in Graduation and 4.50 out of 5.00 in SSC and HSC.
Apply Link:
jamunabankbd.com/index.php/career

Note: Circular will available at “Jamuna Bank” website Tomorrow

বিশ্ব নারী দিবস উপলক্ষে খুবিতে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত

আজ ৮ মার্চ বিশ্ব নারী দিবস। এ উপলক্ষে দিনটি উদযাপনে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান স্কুলের উদ্যোগে সকাল সাড়ে ৯ টায় ক্যাম্পাসে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। সামাজিক বিজ্ঞান স্কুলের ডিন প্রফেসর মোছাঃ তাছলিমা খাতুনের নেতৃত্বে শোভাযাত্রাটি হাদী চত্বর থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেইন গেট হয়ে পুনরায় হাদী চত্বরে যেয়ে শেষ হয়।

শোভাযাত্রায় সামাজিক বিজ্ঞান স্কুলের আওতায় ডিভেলপমেন্ট স্টাডিজ, অর্থনীতি, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা এবং সমাজবিজ্ঞান ডিসিপ্লিনের প্রধানগণ, শিক্ষকবৃন্দ ও শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।

শেষে সামাজিক বিজ্ঞান স্কুলের ডিন সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে এ দিবসের গুরুত্ব তুলে ধরে শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণের জন্য স্কুলের সকল ডিসিপ্লিন প্রধান, হলের প্রভোস্ট, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানান এবং ভবিষ্যতে আরও বড় পরিসরে এই দিবসসহ অন্যান্য দিবসও উদযাপনের প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

খুবির ডিভেলপমেন্ট স্টাডিজ ডিসিপ্লিনের কৃতি শিক্ষার্থী ও খেলোয়াড়দের সংবর্ধনা

গত ৬ মার্চ ২০১৯ খ্রি. তারিখ খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. সত্যেন্দ্রনাথ বসু একাডেমিক ভবনের ইউআরপি ডিসিপ্লিনের লেকচার থিয়েটারে ডিভেলপমেন্ট স্টাডিজ ডিসিপ্লিনের উদ্যোগে কৃতি শিক্ষার্থীদের আর্থিক অনুদান ও খেলোয়াড়দের সংবর্ধনা প্রদান উপলক্ষে ‘ডিভেলপমেন্ট ফিয়াস্তা‘ শীর্ষক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ডিভেলপমেন্ট স্টাডিজ ডিসিপ্লিন প্রধান কাজী হুমায়ুন কবীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ।

তিনি বলেন যে কোনো কাজে সফল হতে হলে একতা, আত্মশক্তি ও দৃঢ় মনোবল থাকা দরকার। ডিভিলপমেন্ট স্টাডিজ ডিসিপ্লিন একটি পরিবার হিসেবে নিজেদেরকে গঠন করতে পেরেছে বলেই খেলাধূলাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে এতো সফলতা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। তিনি বলেন তাদের এ অর্জন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তিকেও উজ্জ্বল করেছে। তিনি কৃতি শিক্ষার্থী, খেলোয়াড় ও বিতর্ক প্রতিযোগিতাসহ বিভিন্ন ইভেন্টে সাফল্য অর্জনকারীদের হাতে আর্থিক অনুদান ও ক্রেস্ট তুলে দেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সামাজিক বিজ্ঞান স্কুলের ডিন প্রফেসর মোছাঃ তাছলিমা খাতুন এবং ছাত্রবিষয়ক পরিচালক প্রফেসর মোঃ শরীফ হাসান লিমন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডিসিপ্লিনের শিক্ষক মোঃ আশিকুজ্জামান। অনুষ্ঠানে ডিসিপ্লিনে কৃতি শিক্ষার্থীদের মধ্যে শ্রেষ্ঠ নৈয়ায়িক আনমন রহমান ও শ্রেষ্ঠ খেলোয়াড় রাসমিয়া সুলতানা বক্তব্য রাখেন। এর আগে সকালে কবি জীবনানন্দ দাশ একাডেমিক ভবনের সামনে থেকে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি একাডেমিক ভবনের সামনে থেকে শুরু করে কটকা হয়ে হাদী চত্বরে এসে শেষ হয়।

এসময় সমাজবিজ্ঞান ডিসিপ্লিন প্রধানসহ সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিনের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, ডিভেলপমেন্ট ডিসিপ্লিন বিশ্ববিদ্যালয় আন্তঃডিসিপ্লিন ভলিবল টুর্নামেন্টে ২০১৫, ২০১৭, ২০১৮ ও ২০১৯ সালে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। এবছর প্লেয়ার অব দ্য ফাইনাল এবং প্লেয়ার অব দ্য টুর্নামেন্ট নির্বাচিত হয় এই ডিসিপ্লিনেরই ছাত্রী রাসমিয়া সুলতানা এবং তিথি সাহা। এছাড়া ভলিবল টুর্নামেন্টে ২০১৪ ও ২০১৬ সালে রানার আপ হয়। অধিকন্ত আন্তঃডিসিপ্লিন বির্তক প্রতিযোগিতায় ২০১৯ সালে চ্যাম্পিয়ন হওয়া ছাড়াও শ্রেষ্ঠ নৈয়ায়িক পদক পান এই ডিসিপ্লিনেরই ছাত্র আনমন রহমান। অনুষ্ঠানে অনার্সে বিভিন্ন বর্ষে এবং মাস্টার্সে সর্বোচ্চ জিপিএ অর্জনকারী মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে আর্থিক অনুদানও প্রদান করা হয়।

রাজপথের আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়ার মুক্তি আসবে — মওদুদ আহমদ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, আইনি লড়াইয়ে সম্ভব নয়, রাজপথের আন্দোলন ছাড়া কারাবন্দি খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা যাবে না।

বুধবার, ৬ মার্চ, দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে বিএনপির মানববন্ধনে তিনি একথা জানান।

মওদুদ আহমদ বলেন, ‘আমরা আইনিভাবে অনেক লড়াই করেছি, কিন্তু তাকে মুক্ত করতে পারি নাই। সরকারের প্রতিহিংসার কারণে রাজনৈতিক প্রভাবের কারণে তিনি জামিন পাচ্ছেন না।’

তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি আসবে রাজপথের আন্দোলনের মাধ্যমে। আন্দোলন ছাড়া তাঁর মুক্তির সম্ভাবনা নেই। রাজপথে যদি সরকারে বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে পারি, আমরা যদি রাজপথে সজাগ থাকি। জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করতে পারি তাহলে ১৫ কোটি মানুষের নেত্রীকে মুক্ত করা সম্ভব।’

এর আগে দুপুর সাড়ে ১২টায় মানববন্ধনের শুরুর কথা থাকলেও বেলা সাড়ে ১১টার আগেই মানববন্ধনে দাঁড়িয়ে যান নেতাকর্মীরা। মানববন্ধনটি দুপুর দেড়টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়। এতে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলের সিনিয়র নেতারা বক্তব্য রাখেন।

পূর্বঘোষিত এই মানববন্ধনে যোগ দিতে ঢল নেমেছে বিএনপির নেতাকর্মীদের। বিএনপি, কৃষকদল, ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, ঢাকা মহানগর বিএনপির বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মীরা খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে যোগ দিয়েছেন।

বেগম জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে মানববন্ধন নির্দিষ্ট সময়ের আগেই মানববন্ধনে বিএনপি নেতাকর্মীরা

দীর্ঘ এক বছরের অধিক সময় ধরে কারাবন্দি দলের চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও তাঁর সুচিকিৎসার দাবিতে মানববন্ধন করছে বিএনপি। মানববন্ধনে যোগ দিতে নির্দিষ্ট সময়ের আগেই জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিপুল সংখ্যক বিএনপি ও দলের অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা অংশ নিয়েছেন।

বুধবার ৬ মার্চ দুপুর ১২টার আগেই মানববন্ধনে দাঁড়িয়ে যান নেতাকর্মীরা। মানববন্ধনটি আনুষ্ঠানিকভাবে দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। এতে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলের সিনিয়র নেতারা অংশগ্রহণ করবেন।