,

মাশরাফি বিন মুর্তজা : জাতীয় সংসদ নির্বাচনী হলফনামায় সম্পদ বিবরণী

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে নড়াইল ২ আসন থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। এরইমধ্যে বৈধতা পেয়েছেন মনোনয়নপত্রেরও।
নির্বাচন কমিশনের কাছে ব্যাক্তি মাশরাফির সবকিছু ঠিকঠাক না থাকলে হয়তো মনোনয়নপত্র পেতে ব্যাঘাত ঘটতো।

নির্বাচন কমিশনে দেয়া সম্পদ বিবরণীতে মাশরাফি বিন মুর্তজা জাতীয় সংসদ নির্বাচনী হলফনামায় মাশরাফি জানিয়েছেন, তিনি কৃষিখাত থেকে বছরে ৫ লাখ ২০ হাজার, ব্যবসা (এমডি, দি ম্যাশ লি.) থেকে ৭ লাখ ২০ হাজার, চাকরি (ক্রিকেট খেলে) করে ৩১ লাখ ৭৪ হাজার এবং অন্যান্য খাত থেকে ১ কোটি ৫৫ লাখ ৪ হাজার ৭০০ টাকা আয় করেন।


সম্পত্তির বিবরণীতে তিনি জানান, তার মোট ৯ কোটি ১৪ লাখ ৫৯ হাজার ৫১ টাকার (৫০ তোলা স্বর্ণবাদে) সম্পত্তি রয়েছে। এর মধ্যে তার হাতে রয়েছে ১ কোটি ৩৭ লাখ ৮০ হাজার টাকা রয়েছে। তিন ব্যাংকে রয়েছে ৬ কোটি ৩৭ লাখ ২৯ হাজার ৫১ টাকা। এ ছাড়া তার একটি কার, দুটি মাইক্রো এবং একটি জিপ রয়েছে যেগুলোর মূল্য ৯৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা।


স্থাবর সম্পত্তি হিসেবে মাশরাফির ২ হাজার ৮০০ বর্গফুটের ফ্ল্যাট রয়েছে যার মূল্য ১ কোটি ৮ লাখ টাকা। পূর্বাচলে তার একটি প্লট রয়েছে যার মূল্য ৮ লাখ ২৪ হাজার টাকা, ৪ কোটি ৩০ লাখ টাকা মূল্যের দালান রয়েছে।
:: সততা যার কাছে সবার উপরে, তার সঙ্গেই তো থাকবে সবাই!

 

ভিকারুননিসা স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা – তোপের মুখে শিক্ষা মন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ

ক্লাস পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের অভিযোগে বাবাকে ডেকে অপমান করায় তা সহ্য করতে না পেরে অরিত্রি অধিকারী (১৫) নামে  ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। সোমবার দুপুরে শান্তিনগরের ৭ তলার বাসায় অরিত্রি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। পরে তাকে উদ্ধার করে বিকাল ৪টার দিকে পরিবারের সদস্যরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

কি এমন পড়ায়!!! নকল করা লাগে!!! নকল করছে বুঝলাম।
আপনি না শিক্ষক!! আপনার দায়িত্বটা কী ছিল???

অভিভাবক ডেকে ইচ্ছামত বাজে ব্যবহার??? নাকি ভাল ভাবে বুঝানো??? শিক্ষক হলেন কিন্তু এমন পড়া পড়াচ্ছেন যে, ছাত্রী নকল করতে বাধ্য!!!

মেয়েটা তো পড়ে মাত্র নাইনে। তার বয়সটাই তো ভুল করা। ভুল টা ধরিয়ে দেয়া কী শিক্ষক হিসেবে আপনার দায়িত্ব না??? সেইটা না করে ছাত্রীর সামনেই করলেন বাবাকে অপমান। সইতে না পেরে করলো সুইসাইড।

এখন এই খুনের দায় কে নেবে??

শিক্ষক মানেই মানুষ গড়ার কারিগর। সবাই শিক্ষক হতে চায় কিন্তু কারিগর সবাই হইতে চায় না।হাসিমুখে ভাল ব্যবহার করলে হয়ত এই শিক্ষকই হইতে পারতো আদর্শ শিক্ষক।
হতাশ!!! তিনি সুযোগ হারালেন।

তাও আবার ভিকারুননিসা স্কুলের শিক্ষক। এই শিক্ষক হয়ত এখন আফসোস করছেন। এখন আফসোস করে কী লাভ আছে??
যা হবার তো হয়েই গেছে।

এখন আসি, আমরা নকল কেন করি???
৫/১০ নম্বরের জন্যে??
আরে এইটা বুঝো না কেন, বই থেকে কপি করে লিখলেই ৫ এ ৫ অথবা ১০ এ ১০ দিবে না।

নকলে ধরা পড়লে মানসম্মান থাকবে??
নকল করার চেয়ে ফেল করা সম্মানের। বুক ফুলিয়ে বলতে পারবে। ফেল করছি তাও নকল করিনি।

সম্মানিত শিক্ষক, সব স্টুডেন্ট ট্যালেন্ট কিন্তু সবাই প্রথম হবার জন্যে পড়াশোনা করে না। কেউ পাশ করতে চায়। এই বিষয়টা আপনারা কেন যে বুঝেন নাহ???

মানুষ গড়ার কারিগরদের মন থেকে সালাম। বাকিদের মুখের থু থু। কারণ তিনাদের উদ্দেশ্য কেবল শিক্ষক পদের।

খারাপ ব্যবহার থেকে দূরে থাকুন। হাসিমুখে ভাল ব্যবহার আপনাকে নিয়ে যাবে হিমালয়ের চেয়ে অন্য এক উচ্চতায়।

ভাল থাকুন সবাই।